চিনা বাদামের ক্ষতি

বাদাম এমন একটি খাদ্য যা বাজে এলডিএল কোলেস্টেরল কমায় এবং ভালো এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ায়৷ এজন্য একে হার্টের বন্ধু বলা হয়৷ খাবারে যে চর্বি থাকে তা মূলত: মনো আনস্যাচুরেটেড, পলি-আনস্যাচুরেটেড এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিডের সংমিশ্রণ৷ কিছু কিছু খাবারে অ্যানস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড থাকে৷ যেমনঃ বাদাম, সবজি তেল এবং মাছ৷ এগুলো শরীরের কোলেস্টেরল কমায়৷ এজন্য এরা “হৃদবান্দব” নামে পরিচিত৷ অপরকিছু খাবারে স্যাচুরেটেড ফ্যাটি বেশি থাকে৷ যেমনঃ মাখন, পনির, মাংস ইত্যাদি৷ এরা কোলেস্টেরল বাড়ায়৷ উদাহরণ হিসেবে চীনা বাদামের কথাই ধরা যাক৷ প্রায় ৩০ গ্রাম চীনা বাদামে ১৪ গ্রাম ফ্যাট থাকে৷ যার মধ্যে মাত্র ২ গ্রাম হচ্ছে স্যাচুরেটেড৷ তাই এটা হৃদবান্ধব শ্রেণীর অন্তভর্ূক্ত৷ কিন্তু চীনা বাদামের চর্বি এর ক্ষতিকর দিক নয়৷ ক্ষতিকর হচ্ছে-কার্বোহাইড্রেট৷ ৩০ গ্রাম চীনা বাদামে প্রায় ১৬০ থেকে ২০০ ক্যালোরি শক্তি পাওয়া যায়৷ এই কার্বোহাইড্রেট পরবর্তীতে চর্বিতে রূপান্তর হতে পারে৷ তাই অতিরিক্ত চীনা বাদাম খাওয়া থেকে সাবধান৷

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s