মোল্লাকান্দির হাজারো নারী-পুরুষ গ্রাম ছেড়ে পালাচ্ছে

গ্রামে গ্রামে দফায় দফায় গুলি ও ককটেল হামলার কারণে পালিয়ে যাচ্ছে অশান্ত মোল্লাকান্দির হাজারও নারী-পুরুষ। মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের ২২টি গ্রামের ভোটারদের মধ্যে ভয়াবহ আতঙ্ক বিরাজ করছে। দিনরাত বৃষ্টির মতো গুলি ও ককটেল বিস্ফোরিত হচ্ছে।মানুষের ঘুম ভাঙ্গার আগেই ককটেল ও গুলিবর্ষণ করে হামলা চালানো হচ্ছে।

এদিকে এসব ঘটনার পরও পুলিশ নিরব ভূমিকা পালন করছে।মোল্লাকান্দিতে একটি অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প থাকলেও সেটি সাধারণ মানুষের কোনো কাজেই আসছে না বলে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নবাসীর অভিযোগ।প্রতিদিন পার্শ্ববর্তী চরকেওয়ার ও মুন্সীগঞ্জ শহর থেকে অস্ত্রবাজ বহিরাগতরা সেখানে মহড়া দিচ্ছে।বানানো হচ্ছে ককটেল ও বোমা।সরবরাহ করা হচ্ছে নানা ধরনের অস্ত্র।

এ নিয়ে শঙ্কিত সেখানকার ভোটাররা।শত শত নারী-পুরুষ গ্রাম ছাড়া হয়ে আছে।হামলা-ভাঙচুর, ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলির ঘটনা অব্যাহত রয়েছে। এসব ঘটনায় মোল্লাকান্দিতে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন সেখানকার প্রায় ২০ হাজার ভোটার।

সোমবার কাকডাকা ভোরে ওই ইউনিয়নের চৈতারচর গ্রামের মানুষের ঘুম ভাঙে ককটেল ও গুলির শব্দে। গ্রামের নারী-পুরুষেরা কোলের শিশু নিয়ে ছুটাছুটি শুরু করে। রাত জেগে পবিত্র শবে বরাতের নামাজ আদায় শেষে ফজরের নামাজ পড়ে ঘুমিয়ে থাকা চৈতারচর গ্রামে আকষ্মিক ককটেল ও গুলি বর্ষণ করে হামলা চালায় নৌকা প্রার্থীর সমর্থকরা। এতে ২ জন গুলিবিদ্ধ ও ৪ জন ককটেলের আঘাতে আহত হন। ভাঙচুর করা হয় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মহাসিনা হক কল্পনার আনারস প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্প। রাস্তায় ও গ্রামে সাটানো ব্যানার ও পোস্টার ছিড়ে ফেলা হয়।গ্রাম ছাড়া করা হয় আনারস প্রতীকের শতাধিক সমর্থককে। নৌকার প্রার্থী রিপন পাটোয়ারির সমর্থক আনিস নকতির নেতৃত্বে এ হামলা হয়।

গ্রাম থেকে পালিয়ে যাওয়া লোকজন পার্শ্ববর্তী চরকেওয়ার ইউনিয়নের খাসকান্দি গ্রামে গিয়ে আত্মগোপন করেন। সেখানেও তারা চরকেওয়ারের অন্যতম শীর্ষ সন্ত্রাসী দুই ভাই আতা ও মোতার আক্রমণের শিকার হন।পরে সকাল ৯টার দিকে পুলিশের সহযোগিতায় তারা ফের গ্রামে উঠেন।এসব কথা জানালেন ৫ নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য (মেম্বার) প্রার্থী মনির হোসেন। তিনিও গ্রাম ছাড়তে বাধ্য হন বলে জানালেন।

তিনি আরও বলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকসহ তৃণমূলের আওয়ামী লীগ আনারস প্রতীকের প্রার্থী মহাসিনা হক কল্পনাকে সমর্থন করায় নৌকার প্রার্থী ও তার ভাই সিপন পাটোয়ারি ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের দিয়ে এসব করাচ্ছেন।

ওদিকে, রোববার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত চরাঞ্চলের মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের আমঘাটা, চরডুমরিয়া, মোল্লাকান্দি, কংশপুরা, রাজারচর, সামারচর ও মহেষপুরসহ ৮টি গ্রামে নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের ককটেল ও গুলিতে ১২ জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়।আহতরা ঢাকার বিভিন্ন সরকারি ও প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিদ্রোহী প্রার্থী মহাসিনা হক কল্পনার সর্মথকদের গ্রাম ছাড়া করার লক্ষে গ্রামগুলোতে হঠাৎ হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ সময় তিন শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ও ৫০ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করা হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদারের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। রোববারের ঘটনায় ১৫০-২০০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে সদও থানার এসআই আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে একটি মামলা করেছেন। মামলার তদন্তভার দেয়া হয়েছে এসআই মো. নুরুল কাদির সৈকত হোসেনকে।

মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রিপন পাটোয়ারি তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অসত্য ও বানোয়াট দাবি করে জানান, মহাসিনা হক কল্পনার সমর্থকরা নৌকার সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা চালাচ্ছে। আনন্দপুর গ্রামে কাপড় দিয়ে বানানো নৌকার স্মারক তুলে নিয়ে টয়লেটে ফেলে দেয় স্বপন গং।ওই গ্রামের ৩০টি বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়।

বিদ্রোহী প্রার্থী মহাসিনা হক কল্পনা বলেন, রিপন পাটোয়ারি ও তার ভাই সিপন পাটোয়ারির নেতৃত্বে মোল্লাকান্দির গ্রামে গ্রামে হামলা চালাচ্ছে সন্ত্রাসীরা।শহর ও আশপাশ এলাকা থেকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইউনুচ আলী বলেন, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে।

পূর্বপশ্চিম

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s