লৌহজংয়ে কারেন্ট জাল বহনের দায়ে ২ ব্যক্তির জেল

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে অবৈধ কারেন্ট জাল বহনের দায়ে দুই ব্যক্তিকে এক বছর করে কারাদন্ডাদেশ দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। দন্ড প্রাপ্তরা হলো- করিম মিয়া (২২) ও মো. জলিল (৪৫)। লৌহজং উপজেলা ইউএনও মো. খালেকুজ্জামান মঙ্গলবার ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ দন্ডদেশ দেন। এর আগে ১০৫ পিসের ৬৮ কেজি কারন্ট জালসহ দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার ঘোড়দৌড় বাজারের কাছে এ অবৈধ কারন্টে জাল আটক করা হয়।

লৌহজং থানার ওসি মো. আনিছুর রহমান জানান, মুন্সীগঞ্জ সদরের মুক্তারপুর হতে জালগুলো ক্রয় করে বরিশালের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছিল। মুক্তারপুরের কাছেই বরিশালের লঞ্চ থাকলেও আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর চোখ ফাঁকি দিতে তারা এ অবৈধ কারেন্ট জাল সড়ক পথে লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাট দিয়ে বরিশাল নিয়ে যাচ্চিল। তারা ঘোড়দৌড় বাজারের পাকা ব্রীজের কাছে পৌছলে পুলিশ তল্লাশি চালায়। ওসি জানান, অবৈধ এ জালের মূল্য প্রায় ২ লাখ টাকা।

দন্ডাশেদ প্রাপ্ত করিম শেখ বরিশালের উজির পুর সিকদার পাড়ার আলমগীর শেখের পুত্র। আর মো. জলিল পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালিয়ার চালতেবানিয়া গ্রামের বেলায়েত হোসেনের পুত্র। দন্ডাদেশের পর থানা সংলগ্ন পদ্মা পারে অবৈধ এ কারেন্ট জালগুলো আগুনে পুড়ে বিনষ্ট করা হয়। আসামীদের আজ মঙ্গলবার দুপুরে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

জনকন্ঠ