হোসেন্দী উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসক-নার্স গড় হাজির

কারণ দর্শানোর নোটিশ দায়িত্ব এখন পিয়নের হাতে
গাজী মাহমুদ পারভেজ: মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের চিকিৎসক নার্স‘ গড় হাজির বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর তা আমলে নিয়ে গতকাল রোববার সংশ্লিষ্টদের কারণ দর্শানো নোটিশ দেয়া হয়েছে।

উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সেই গড় হাজির চিকিৎসক ডা. মাহবুবে খোদা, মিডওয়াইফ বা নার্স আশরাফ জাহান ও এমএলএসএস বা পিয়ন সফিক মিয়াকে কর্মস্থলে অনিয়মিত উপস্থিত ও অনিয়মের অভিযোগের দায়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো: মোসাদ্দেক হোসেন কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকেহোসেন্দী উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র দায়িত্ব এখন পিয়ন এর হাতে। বুধবার সকাল সাড়ে এগারটা গজারিয়া উপজেলার চারটি ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের, একটি হোসেন্দী ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র দায়িত্বরত চিকিৎসকের চেয়ারে বসে আছেন মো: সফিক মিয়া। খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেলো তিনি কেন্দ্রের পিয়ন ! চিকিৎসকের আসনে কেনো জানতে চাইলে লাজুক হেসে আসন ছেড়ে উঠে পড়লেন। বললেন স্যারতো সপ্তাহে দুই দিন আসেন। উপসহকারী মেডিকেল অফিসার সহিদুল ইসলাম পাশে অবস্থিত প্রাথমিক সমাপনী(পিএসসি) পরীক্ষা কেন্দ্র হোসেন্দী উচ্চ বিদ্যালয়ে দায়িত্ব পালন করছেন। হোসেন্দী ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে কর্মকর্তা,কর্মচারী সাকুল্যে পাঁচ জন মেডিকেল অফিসার ডা. সিকদার মাহবুবে খোদা ।

উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সহিদুল ইসলাম, মিডওয়াইফ বা সেবিকা আশরাফ জাহান, এমএলএসএস বা পিয়ন মো: সফিক মিয়া। অপর জন ফার্মাসিষ্ট আমিনুল ইসলাম প্রেষণে অন্য কোথাও দায়িত্ব পালন করেন। সফিক মিয়া বসে আছেন স্যারের চেয়ারে, উপসহকারী অফিসার পরিক্ষা কেন্দ্রে বাকীরা অনুপস্থিত। দুপুর সাড়ে বারোটা হোসেন্দী গ্রামের হাজী মো: সৈয়দ আমিন আসলেন পায়ের ব্যাথার চিকিৎসা নিতে কোন ডাক্তার না পেয়ে ফিরে যাওয়ার আগে বলে গেলেন বড় ডাক্তারকে কখনো পাই না সেকেন্ড ডাক্তার পরিক্ষা কেন্দ্রে থাকায় ফিরে যেতে বাধ্য হলেন কোন সেবা গ্রহন ছাড়াই। উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সহিদুল ইসলাম জানালেন,পাঁচ জনের মধ্যে দুইজন উপস্থিত থাকে স্যার থাকে সপ্তাহে দুইদিন।

বুধ ও গতকাল বৃহস্পতিবার সরজমিন ঘুরে চিকিৎসক এবং মিডওয়াইফকে কর্মস্থলে পাওয়া যায়নি। অথচ মেডিকেল অফিসার দাবী করনে তিনি বুধবারে কর্মস্থলে উপস্থিত থাকেন ! চিকিৎসক মাহবুবে খোদা মুঠোফোনে জানান, সপ্তাহের শনি ও বুধবার তিনি কেন্দ্রে হাজির থাকেন বাকীদিন সহকারী চালিয়ে নেয় ।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আরো জানান, উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে চিকিৎসক ও নার্সকে অনিয়মিত কর্মস্থলে উপস্থিতির কারণে এবং পিয়ন সফিক মিয়া কর্মস্থলে অফিসার তথা চিকিৎসকের আসনে বসে থাকার অভিযোগে নোটিশ প্রদান করা হয়। কারণ দর্শানোর নোটিশের জবার পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

বিডিহট নিউজ

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s